আইফেল টাওয়ারের চেয়েও বেশী উচ্চতার গ্রহাণু ধেয়ে আসছে পৃথিবীর দিকে!

20

প্রযুক্তি ডেস্ক : পৃথিবীতে গ্রহাণুর আঘাতের ঘটনা সবসময় বিজ্ঞানীদের কাছে অনেক বড় শংকার কারণ। এসব গ্রহাণুর গতিপথে সামান্য পরিবর্তন হলেই তা পৃথিবী ধংসের মতো বিপর্যয় বয়ে আনতে পারে। ২০২৯ সালে পৃথিবীর খুব কাছ দিয়ে উড়ে যাবে এপোফিস নামের একটি গ্রহাণু যা নিয়ে চলছে বিস্তর গবেষণা।

 

পৃথিবীর দিকে অসম্ভব গতিবেগে ধেয়ে আসছে একটি দানবাকৃতির গ্রহাণু। আকারে বিশাল হওয়ার কারণে গ্রহাণুটি পৃথিবীর পক্ষে বিপজ্জনক হয়ে উঠতে পারে বলে তথ্য দিয়েছে নাসা। ৮৯ বছর আগেও একবার পৃথিবীর কাছাকাছি চলে এসেছিলো এম্পায়ার স্টেট বিল্ডি-এর উচ্চতার আড়াই গুন এই গ্রহাণুটি।

 

বিজ্ঞানীদের একটি বড় অংশের ধারণা, এমনই একই গ্রহাণু আছড়ে পড়ায় পৃথিবী থেকে বিলুপ্ত হয়েছিল ডাইনোসররা। দানবাকৃতির এই গ্রহাণুটির প্রথম হদিস পাওয়া গিয়েছিলো ১৯৯৪ সালে। জ্যোতির্বিজ্ঞানী রবার্ট ম্যাকনট অস্ট্রেলিয়ার সাইডিং স্প্রিংস অবজারভেটরিতে আকাশ পর্যবেক্ষণ করতে গিয়ে প্রথম এর দেখা পান।

 

বৃহস্পতিবার মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা জানায়, আগামী সপ্তাহের শুরুর দিকেই পৃথিবীর খুব কাছাকাছি এসে পড়বে 1994 PC-1 নামের গ্রহাণুটি। সংস্থাটি আরো জানিয়েছে, আকারে প্রায় এম্পায়ার স্টেট বিল্ডি-এর আড়াই গুন গ্রহাণুটির দৈর্ঘ ৩ হাজার ২৮০ ফুট।

 

অ্যাস্টারয়েড বেল্ট থেকে নয়, বরং পৃথিবীর খুব কাছে পিঠের এলাকা থেকেই আসছে নিয়ার আর্থ অব্জেক্টসের শ্রেণীভুক্ত করা এই গ্রহাণু। এখন পর্যন্ত এই শ্রেণীর অন্তত এক হাজারটি গ্রহানুকে চিহ্নিত করেছে নাসা। যা আজ নয়তো কাল বিপজ্জনক হতে পারে পৃথিবীর পক্ষে।

 

তবে এখনও পর্যন্ত গ্রহাণুটির যে গতিপথ, সে হিসেবে খুব কাছে এসে পড়লেও হয়তো তেমন বিপদ নেই বলে জানিয়েছে নাসা। এই গতিপথ বজায় থাকলে পৃথিবী থেকে চাঁদের দূরত্বের ৫ গুন থাকবে গ্রহাণুটি। ৮৯ বছর আগে এই গ্রহাণুটিরই পৃথিবীর খুব কাছে চলে এসেছিলো। সংস্থাটি আরও বলছে, ভবিষ্যতে ৮৩ বছর পর ২১০৫ সালের ১৮ জানুয়ারী আবারও কাছে আসবে 1994 PC-1।